Also read in

বিধায়ক দ্বীপায়ন এর উদ্যোগে স্থানীয় ক্লাব সংগঠনের সঙ্গে মতবিনিময় করলেন রাজ্যের ক্রীড়া মন্ত্রী

শিলচরের বিধায়ক দ্বীপায়ন চক্রবর্তীর উদ্যোগে স্থানীয় ক্লাব সংগঠন এবং ক্রীড়াপ্রেমীদের সঙ্গে মতবিনিময় করলেন রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী বিমল বরা। আশীর্বাদ বিবাহ ভবনে আয়োজিত এই মতবিনিময় অনুষ্ঠানে ক্রীড়া মন্ত্রীর কাছে পরিকাঠামোর অভাব সহ আরো নানা ইস্যু তুলে ধরেন বিভিন্ন ক্লাব সংগঠনের প্রতিনিধিরা। ক্রীড়া মন্ত্রী সব সমস্যাই মন দিয়ে শুনলেন। ‌ সেইসঙ্গে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস ও দিলেন।

ঠাসা সূচি নিয়ে বরাক উপত্যকায় সফরে এসেছিলেন মন্ত্রী বরা। তার সূচিতে ছিল করিমগঞ্জ ও হাইলাকান্দি সফর ও। তবে এরই মধ্যে শিলচরের বিধায়কের অনুরোধে সাড়া দিয়ে মতবিনিময় অনুষ্ঠানের সম্মতি দেন ক্রীড়া মন্ত্রী। বিধায়ক দীপায়ন বলেন, ‘একেবারে ঠাসা সূচি নিয়ে বরাক সফরে এসেছিলেন রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী। করিমগঞ্জ ও হাইলাকান্দি সফর শেষ করার পর আমি উনাকে শিলচরের ক্লাব সংগঠন গুলির সঙ্গে কিছু সময়ের জন্য মতবিনিময় করার আবেদন করি। ‌ তিনি এতে সাড়া দেন।’ বিধায়ক আরো বলেন, ‌ ‘স্থানীয় ক্রীড়া পরিকাঠামো সহ আরও যেসব সমস্যা রয়েছে সেগুলি ক্রীড়া মন্ত্রীর কাছে তুলে ধরার জন্যই আমি এই উদ্যোগ নিয়েছি। ‌ রাজ্য সরকার খেলাধুলায় বিশেষ নজর দিচ্ছে। বরাক উপত্যকার দিকেও সরকারের বিশেষ নজর রয়েছে। প্রত্যেক জেলায় পরিকাঠামো উন্নতির জন্য সরকার বিশেষ পরিকল্পনা নিয়েছে।’

অনুষ্ঠানে শিলচরের ১৬টি ক্লাব সংগঠন অংশ নেয়। ক্লাব সংগঠনের প্রতিনিধিরা ক্রীড়া মন্ত্রীর কাছে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু তুলে ধরেন। ‌ কিভাবে পরিকাঠামোর অভাবে স্থানীয় প্রতিভা গুলি বিকাশ ঘটছে না, সেই প্রসঙ্গ বারবার উঠে এসেছে তাদের কথায়। ক্রীড়া ক্ষেত্রে আরও ফান্ডিং এর প্রসঙ্গ থেকে শুরু করে নিউজ শিলচর এলাকায় একটি মাঠের প্রয়োজনীয়তা নিয়েও ক্রীড়া মন্ত্রীর কাছে আর্জি জানান ক্লাব সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

শিলচরে স্পোর্টস ইউনিভার্সিটির একটি ক্যাম্পাস গড়ে তোলা যে কতটুকু প্রয়োজন, উঠে আসে সেই প্রসঙ্গ ও। জেলা স্কুলগুলিতে ক্রীড়া শিক্ষক নিয়োগের জন্য ক্রীড়া মন্ত্রীর কাছে আর্জি জানানো হয়। ‌ সেইসঙ্গে প্রত্যেকটি স্কুলে যাতে স্পোর্টস বাধ্যতামূলক করা হয়, সেদিকেও ক্রীড়ামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ক্লাব সংগঠনের প্রতিনিধিরা। অনেক সময় থেকেই এস এম দেব স্টেডিয়াম ও ইন্ডিয়া ক্লাবের ইনডোর স্টেডিয়াম অর্ধ সমাপ্ত ভাবে রয়েছে। দুটো স্টেডিয়ামের ই কাজ বাকি। এ নিয়ে যাতে রাজ্য সরকার শীঘ্রই পদক্ষেপ গ্রহণ করে তার জন্য ক্রীড়া মন্ত্রীর কাছে আর্জি জানানো হয়। ‌ এছাড়া পুলিশের চলতি ইন্টারভিউয়ে যেন শিলচরের ছেলেমেয়েদের স্পোর্টস কোটায় চাকরি প্রদান করা হয়, তা নিয়েও ক্রীড়া মন্ত্রীর কাছে আবেদন জানানো হয়। অন্য জেলার খেলোয়াড়রা স্পোর্টস পেনশন পেলেও এ জেলার ক্ষেত্রে ব্রাত্য থেকে গেছেন ক্রিড়াবিদরা। ‌ এ নিয়েও ক্রীড়ামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।

ক্রীড়ামন্ত্রী স্থানীয় ক্রীড়া জগতের বিভিন্ন সমস্যায় মন দিয়ে শোনেন। মন্ত্রী বিমল বরা বলেন, ‘এরকম একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত। আমি আপনাদের সব কথাই শুনেছি। ‌ বর্তমান সরকার স্পোর্টস এর দিকে বিশেষ নজর দিয়েছে। খেলাধুলার উন্নতির জন্য বিভিন্ন পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। যোগ্য ক্রীড়াবিদদের সরকারি চাকরি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।’ এ ধরনের একটি অনুষ্ঠান আয়োজনের উদ্যোগ নেওয়ার জন্য শিলচরের বিধায়কের প্রশংসা করেন ক্রীড়া মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘এ ধরনের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্থানীয় সমস্যাগুলি উঠে আসে। খুবই ভালো উদ্যোগ নিয়েছেন শিলচরের বিধায়ক।‌ আমি খুবই কম সময়ের জন্য বরাক সফরে এসেছি। তবে দীপায়ন দা যখন আমায় এই মতবিনিময় অনুষ্ঠানের জন্য অনুরোধ করেন আমি সঙ্গে সঙ্গে রাজি হয়ে যাই। ‌ রাজ্য সরকার প্রত্যেকটি জেলাতে ক্রীড়া পরিকাঠামো উন্নতির জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। ‌ একাধিক পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। ‌ শিলচরের জন্য সরকারের বিশেষ পরিকল্পনা রয়েছে। এনিয়ে দীপায়ন দার সঙ্গে আমার এক প্রস্থ আলোচনা হয়েছে। আপনারা যেসব সমস্যা তুলে ধরেছেন, সরকারের পক্ষ থেকে আমি সেগুলো সমাধানের চেষ্টা করব।’

Comments are closed.