Also read in

আসাম - মিজোরাম সীমান্তে নতুন নির্মাণ: স্থিতাবস্থা পুনরুদ্ধার করতে বৈঠক দুই প্রশাসনের

হাইলাকান্দি প্রশাসনের কাছে রিপোর্ট আসে যে মিজোরা আসামের ভূখণ্ডের মধ্যে রাস্তা তৈরি করছে। সঙ্গে সঙ্গেই ঘটনাস্থলে ছুটে যান জেলা শাসক রোহন কুমার ঝা, পুলিশ সুপার গৌরব উপাধ্যায় সহ অন্যান্যরা। সেখানে তারা মিজোরামের কোলাসিব জেলার আধিকারিকদের সঙ্গে দেখা করেন।

“হাইলাকান্দি প্রশাসন নতুন করে নির্মাণের কার্যকলাপে তীব্র আপত্তি নথিভুক্ত করেছে এবং মিজোরামকে কোন ধরনের নির্মাণ কাজ বন্ধ করতে বলেছে। কোলাসিব প্রশাসন সীমান্তের আশেপাশে কোন ধরনের নির্মাণ কাজ হবে না বলে আশ্বাস দিয়েছে এবং নির্মাণ কার্যক্রমে নিয়োজিত ব্যক্তিদের অবিলম্বে প্রত্যাহার করার কথা বলেছে,” হাইলাকান্দির পুলিশ অধীক্ষক গৌরব উপাধ্যায় জানিয়েছেন।

কাছাড়ের আধিকারিকদের সাথে বৈঠকে মিজোরামের প্রতিনিধি দলে কোলাসিবের এসপি ভালনালফাকা রাল্টে ছিলেন। তিনি স্বীকার করেছেন যে, সেখানে একটি নির্মাণ চলছিল, তবে এটি আসামের এলাকার মধ্যে থাকার কথা তিনি মেনে নেননি । “কৃষকরা সেখানে যুগ যুগ ধরে চাষ করে আসছে এবং আসাম কখনই দাবি করেনি যে, এলাকাটি তাদের এক্তিয়ারের মধ্যে রয়েছে,” রাল্টে বলেন। তিনি আরও বলেন, কৃষক সমিতি তাদের চাষাবাদের সুবিধার জন্য এই রাস্তাটি নির্মাণ করছিল।

তবে তিনি এটাকে দুই রাজ্যের কর্মকর্তাদের মধ্যে সৌহার্দ্যপূর্ণ বৈঠক বলেছেন। “আমরা মনে করি এটি আমাদের জমি, তারা মনে করে এটি আসামের মধ্যে, যাই হোক না কেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে বিরোধ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত নির্মাণ কাজ অন্তত আপাতত স্থগিত থাকবে। সেই অনুযায়ী, নির্মাণ বন্ধ করা হয়েছে এবং স্থানীয়দের কোনো নির্মাণ কাজ না করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে,” ভালনালফাকা রাল্টে জোর দিয়ে বলেন।

এখানে উল্লেখ্য, ৫ আগস্ট কাছাড়ের লায়লাপুরে রক্তারক্তি কাণ্ডের পরে দুই মন্ত্রিসভার শীর্ষ মন্ত্রীরা আইজলে বৈঠক করেছিলেন এবং সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল যে কোনও রাজ্যই সীমান্তবর্তী অঞ্চলে কোনও নির্মাণ কাজ বা টহলদারির কাজ শুরু করবে না। যদিও এটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের সাথে সমন্বয়ের সাথে উভয় রাজ্যের দ্বারা জারি করা একটি যৌথ বিবৃতি ছিল, দ্রোন ফুটেজ কাছাড় এবং হাইলাকান্দির সীমান্তবর্তী এলাকায় বেশ কয়েকটি নতুন নির্মাণের কার্যকলাপ নিশ্চিত করেছে।

প্রকৃতপক্ষে, আসামের বন ও পরিবেশ বিভাগের কমিশনার এবং সচিব জি ডি ত্রিপাঠি বরাক বুলেটিনের সাথে কথা বলতে গিয়ে বলেছিলেন, “আসাম সরকার অসম-মিজোরাম সীমান্তে অযৌক্তিক উত্তেজনা বৃদ্ধি এড়াতে রাস্তা নির্মাণ বন্ধ করার জন্য মিজোরামের মুখ্য সচিবকে চিঠি দিয়েছে।”

হাইলাকান্দি এবং কোলাসিবের মধ্যে এই বৈঠকটি যদি সীমান্তবর্তী অঞ্চলে একের পর এক অননুমোদিত নির্মাণের সমাপ্তি ঘটায় তবেই বৈঠক ফলপ্রসূ হিসেবে পরিগণিত হতে পারে।

Comments are closed.