Also read in

ডিসেম্বরেই শিলচর রেল স্টেশনে 'মাল্টি কিউসিন ফুডকোর্ট', রাজধানী এক্সপ্রেস শীঘ্রই, জানালেন সাংসদ রাজদীপ

অন্যান্য শহরের মতো এবার শিলচর শহরের রেলওয়ে স্টেশনে একটি বিরাট আকারের ভারতীয় জাতীয় পতাকা স্ব-গৌরবে উড়ছে। ১০০ ফুট উঁচু স্তম্ভে বিরাট আকারের পতাকা শহরের প্রায় প্রত্যেক কোনা থেকে চোখে পড়ছে। এছাড়া শিলচর রেল স্টেশনের ফুট ওভারব্রিজের দুই প্রান্তে দুটো লিফট চালু করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে শিলচরের সাংসদ রাজদীপ রায় নিজে এগুলো চালু করেছেন, পাশাপাশি বেশকিছু আশ্বাস দিয়েছেন। উত্তর পূর্ব রেলের এডিআরএম সুরজ জানি সহ সিনিয়র ডিএসও একে সিং, শিলচরের স্টেশন সুপার বিপ্লব দাস সহ অন্যান্য আধিকারিকদের নিয়ে তিনি এগুলো শুরু করেন। তাদের উপস্থিতিতেই আশ্বাস দেন, আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে শিলচর রেলওয়ে স্টেশনে ‘মাল্টি কিউসিন ফুডকোর্ট’ চালু হচ্ছে। এছাড়া আগরতলা-দিল্লী রাজধানী এক্সপ্রেসকে বদরপুরে না থামিয়ে শিলচর পর্যন্ত নিয়ে আসার প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি। এ ব্যাপারে সরাসরি রেলমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা হয়েছে এবং রেলমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন তারা এই বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন।

 

এদিন বিকেল তিনটে নাগাদ শিলচর রেলওয়ে স্টেশনে একটি ছোটখাটো অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে সাংসদ রাজদীপ রায় বলেন, “অতীতের সরকারে দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে শিলচর-লামডিং ব্রডগেজ লাইন আটকে রেখে দেওয়া হয়েছিল। তবে আমাদের সরকার আসার পর ছয় মাসের মধ্যে সেই জট খুলে এবং এখন দেশের রেলওয়ে মানচিত্রে আমরা অন্যান্য যেকোনও উন্নত শহরের মত স্থান পেয়েছি। গতবছর করোনা ভাইরাসের প্রকোপ এবং পরবর্তীতে লকডাউন পরিস্থিতিতে অনেক রেল বাতিল হয়েছে। এরমধ্যে শিলচর থেকে গুয়াহাটি সহ দেশের অন্যান্য শহরে সঙ্গে সংযোগ থাকা ট্রেনগুলো বাতিল হয়েছিল। আমরা রেলমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সেগুলো আবার চালু করতে। পাশাপাশি আরও নতুন নতুন ট্রেন আমাদের দেওয়ার জন্যও আবেদন জানানো হয়েছে। বিশেষ করে শিলচর থেকে সরাসরি দিল্লি যাওয়ার জন্য একটি রাজধানী এক্সপ্রেস দিতে আমরা আবেদন জানিয়েছি। প্রথমে আমাদের ইচ্ছে ছিল মনিপুর থেকে যখন রাজধানী এক্সপ্রেস চালু হবে সেটা শিলচর পর্যন্ত নিয়ে আসার। তবে আপাতত আমরা জানিয়েছি আগরতলা থেকে যে রাজধানী দিল্লি যাচ্ছে সেটা বদরপুরে না থামিয়ে শিলচর নিয়ে আসার। যাতে এখান থেকে যাত্রীদের সরাসরি দিল্লি যাওয়ার একটি সুযোগ করে দেওয়া সম্ভব হয়। এছাড়া শিলচর রেল স্টেশনে একটি বড় মাপের ফুডকোর্ট তৈরি করতে বহুদিন ধরে আবেদন জানানো হচ্ছে। বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই শিলচর রেল স্টেশনে মাল্টি কিউসিন ফুডকোর্ট চালু করা হবে।”

 

এরপর শিলচর রেল ষ্টেশনের ফুট ওভার ব্রিজের সঙ্গে গড়ে ওঠা দুটো লিফট উদ্বোধন করেন সাংসদ রাজদীপ রায়। বিজেপির বরিষ্ঠ নেতা তথা এপিডিসিএলের ডিরেক্টর নিত্য ভূষণ দে সহ অন্যান্য অতিথিরা এতে যোগ দেন। সেখান থেকে বেরিয়ে স্টেশন চত্বরে ভাষাশহীদ স্তম্ভের পাশে একটি ১০০ মিটার উঁচু বিরাট আকারের তবে ভারতীয় জাতীয় পতাকা মেশিনের মাধ্যমে চালু করেন সাংসদ এবং উপস্থিত অতিথিরা। এটি কাছাড় জেলায় অন্যতম দর্শনীয় জায়গা হিসেবে গণ্য হতে শুরু করেছে। এত বড় পতাকা উন্মোচিত হওয়ার পর অনেকেই সেখানে দাঁড়িয়ে সেলফি তুলছেন এবং সগৌরবে ফেসবুকে আপলোড করছেন।

Comments are closed.