Also read in

কোভিড-১৯: সংক্রমণ ঠেকাতে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষিত হল হাইলাকান্দি জেলার নবীন সোনাপুর গ্রামের বাসগৃহ

কোভিড সংক্রমণ আবার শিরোনামে, হাইলাকান্দি জেলা প্রশাসন এক আদেশবলে হাইলাকান্দি জেলার আলগাপুর রজস্বচক্রের নবীন সোনাপুর গ্রামের এক বাসভবনকে কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করেছেন এবং অপর একটি এলাকা “বাফার জোন” হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।

এই প্রসঙ্গে আমাদের প্রতিনিধির সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে হাইলাকান্দির জেলাশাসক মেঘ নিধি দাহাল বলেন,”আগে অনেক বড় এলাকা কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হতো, এখন মোটামুটি শুধু কোভিড সংক্রমিত ব্যক্তির বাড়ি কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হচ্ছে।”

বরাক উপত্যকার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে জেলাশাসক জানান, “দেশের অন্যান্য অঞ্চলে সংক্রমণ বাড়ছে, তাই আমাদের এখানেও হঠাৎ করে সংক্রমণ বেড়ে যেতে পারে।গত বৎসর মুম্বাইতে সংক্রমনের প্রায় একমাস পরে আমাদের এলাকায় সংক্রমণ বেড়েছিল, তাই খুবই সতর্ক থাকতে হবে এবং সংক্রমণ ঠেকাতে যা যা করণীয় সবাইকে তা মেনে চলতে হবে। তবে,আমরা এখন যথেষ্ট প্রস্তুত রয়েছি ।”

গতকাল জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এক আদেশ বলে আয়ুব আলী লস্করের পুত্র ৪০ বৎসর বয়স্ক মজিবুর রহমান লস্করের বাসগৃহকে কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করেন । পার্শ্ববর্তী অঞ্চল (উত্তরে: গবর্ণমেন্ট এলপি স্কুল, দক্ষিনে: মসজিদ, পূর্বে: ধানক্ষেত, পশ্চিমে: পি ডব্লিউ ডি রাস্তা) কে বাফার জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

উক্ত এলাকাগুলিতে নিম্নলিখিত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে:

১. প্রবেশ ও প্রস্থান পয়েন্ট সুনির্দিষ্ট থাকবে।

২. ঘোষিত এলাকায় পূর্ব অনুমতি ব্যতীত কাউকে প্রবেশ ও প্রস্থান করতে দেওয়া হবে না।

৩. যানবাহন চলাচল কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

৪. চিকিৎসা , প্রয়োজনীয় পণ্য ও পরিষেবা ব্যতীত কোনও কিছু চলাচলের অনুমতি নেই।

৫. অনির্ধারিত মানুষকে চলাফেরা করতে অনুমতি দেওয়া হবে না l

৬. আইডিএসপি-এর মাধ্যমে মানুষকে চলাফেরা করতে ট্রানজিট রেকর্ড করে অনুসরণ করতে হবে।

৭. সামাজিক দূরত্ব সম্পর্কিত সমস্ত বিধিবদ্ধ নির্দেশ কঠোরভাবে পালন করতে হবে।

পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই আদেশ কার্যকর থাকবে l

উল্লেখ্য, গতকাল আয়ুব আলী লস্করের পুত্র ৪০ বৎসর বয়স্ক মজিবুর রহমান লস্করের কোভিড সংক্রমণ ধরা পড়ে।

Comments are closed.