Barak Bulletin is a hyperlocal news publication which features latest updates, breaking news, interviews, feature stories and columns.
Also read in

Gautam Roy in BJP; Celebrations in Hailakandi

প্রাক্তন মন্ত্রী গৌতম রায়ের বিজেপি দলে যোগদানের পরিপ্রেক্ষিতে হাইলাকান্দি জেলা বিজেপির বিভিন্ন স্তরের একাংশ নেতা কর্মীর প্রতিবাদে মঙ্গলবার রীতিমতো উত্তপ্ত হয়ে ওঠে জেলা বিজেপি কার্যালয়।প্রদেশ বিজেপি নেতৃত্বের সম্মুখে একাংশ দলীয় নেতা কর্মীর প্রতিবাদী আন্দোলনে একসময় রনক্ষেত্রের

আকার ধারণ করে হাইলাকান্দির দলীয় কার্যালয়।

জানা গেছে, এদিন দলীয় সদস্যভুক্তি অভিযানের খোঁজ নিতে জেলাবিজেপি কার্যালয়ে বিজেপির প্রদেশ সংগঠনমন্ত্রী ফনীন্দ্র নাথ শর্মা, বরাক উপত্যকার সাংগঠনিক সম্পাদক নিত্য ভূষণ দে, বিশ্বরূপ ভট্টাচার্য, সুধাংশু রঞ্জন দাস, প্রনয় দাস এবং হাইলাকান্দি জেলা বিজেপির সভাপতি সুব্রত নাথ প্রমুখ ছুটে এলে দলীয় নেতা কর্মীদের তোপের মুখে পড়েন। এদিন দলের প্রদেশ নেতাদের হাইলাকান্দি আগমনের খবর পেয়ে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে দলীয় কর্মী সমর্থকরা জড়ো হয়েছিলেন হাইলাকান্দির জেলাকার্যালয়ে। উপস্তিত বিজেপি কর্মী সমর্থকদের অধিকাংশই এসেছিলেন গৌতম রায়ের বিজেপিতে যোগদানের প্রতিবাদ জানাতে। এরপর একসময় জেলা কার্যালয়ে সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে আলোচনা আরম্ভ হওয়ার পর দলীয় কর্মীরা গৌতম রায় ইস্যুতে ক্ষোভে ফেটে পড়েন। মুহুর্তের মধ্যে উত্তাল হয়ে উঠে হাইলাকান্দির জেলা বিজেপি কার্যালয়।বিজেপি অফিস ও অফিসের বাইরে শুরু হয় চিৎকার চেচামেচি, ঠ্যালাধাক্কা। দেখা দেয় উত্তেজনা । ক্ষুব্ধ কর্মীরা গৌতম রায়ের বিজেপিতে যোগদানে তাদের ঘোর আপত্তির কথা জানিয়ে অবিলম্বে তাকে দল থেকে বহিস্কারের দাবি জানাতে থাকেন। একসময় পরিস্থিতি এতটাই উতপ্ত হয়ে উঠে যে, কর্মী সমর্থকদের অনেককেই মারমুখী হয়ে উঠতে দেখা যায়।

প্রতিবাদকারীরা চিৎকার করে বলতে থাকেন যে, গৌতম রায় কংগ্রেসের নেতা এবং মন্ত্রী থাকাকালে বিজেপি কর্মী সহ আর এস এস এবং বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কর্মীদের নানাভাবে হেনস্থা করেছেন । তাই এহেন ব্যক্তিকে বিজেপিতে নেওয়া হলে দলের চরম ক্ষতি হবে এবং অনেক কর্মী দল থেকে ইস্তফা দিতে বাধ্য হবেন।বিজেপির কিষান মোর্চার নেতা বিদ্যুৎ পাল গৌতম রায়কে দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তি বলে আখ্যায়িত করে সভা স্থলে প্রতিবাদে সোচ্চার হয়ে ওঠেন।গৌতম রায় মন্ত্রী থাকাকালে অসংখ্য সাধারণ মানুষকেও হেনস্থা করেছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

জেলাবিজেপির সম্পাদক সঞ্জয় দে গৌতম রায়ের বিরুদ্ধে গুচ্ছ অভিযোগ তুলে তাকে হিন্দুবিরোধী নেতা বলে অভিহিত করেন।

যুবমোর্চা নেতা কৌশিক চক্রবর্তী সহ আরো অনেকে এদিন গৌতম রায়ের বিজেপিতে যোগদানের তীব্র বিরোধীতা করেন।। তারা এদিন সাফ জানিয়ে দেন, গৌতম রায় যদি জেলাবিজেপি কার্যালয়ে প্রবেশের চেষ্টা করেন তাহলে দলীয় কর্মীরা বিজেপি কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেবেন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে প্রদেশ সংগঠনমন্ত্রী ফনীন্দ্র নাথ শর্মা গৌতম রায়ের বিজেপিতে যোগদানের ব্যাপারে তাদের কোন হাত ছিল না বলে সাফাই দেন। তিনি এব্যাপারে কেন্দ্রীয় নেতাদের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে বিজেপি কার্যালয় থেকে কেটে পড়েন। আর এরই মধ্যে ক্ষুব্ধ কর্মীরা নানা স্লোগান দিয়ে এলাকা সরগরম করে তুলেন।

Comments are closed.