Also read in

J K Baruah Trophy U-19: Silchar beats Dhemaji, will play Nalbari in the finals

জে কে বরুয়া ক্রিকেটের ফাইনালে শিলচর, ধেমাজিকে টপকে সামনে এবার নলবাড়ি

চার বছর পর ফের একবার জে কে বরুয়া ট্রফি আন্তঃজেলা অনূর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেটে খেতাবের দোরগোড়ায় শিলচর। গোলাঘাটে চলতি ফাইনাল রাউন্ডে প্রথমে গুয়াহাটি ও তারপর ধেমাজি বাধা টপকে এবার ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে তথাগত দেবরায়ের ছেলেরা। খেতাবি লড়াইয়ে শিলচরের প্রতিপক্ষ এবার নলবাড়ি। শনিবার শিলচর দল কার্যত সেমিফাইনালে প্রথম ইনিংসের লিডে হারিয়েছে ধেমাজিকে।

টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই শিলচর ধারাবাহিক পারফর্ম করছে। এই ধারাটা অব্যাহত রয়েছে ফাইনাল রাউন্ডেও। বরং গোলাঘাটে কঠিন কন্ডিশনে টানা দুই ম্যাচে কঠিন প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে সেরা পারফরম্যান্স দিয়েছে শিলচরের ছেলেরা। গুয়াহাটির মতো শক্তিশালী দলের বিরুদ্ধে সহজেই উতরে যাবার পর এবার ধেমাজিকেও সহজেই টপকে গেলেন শুভজিৎ এন্ড কোম্পানি।

কঠিন একটা উইকেটে শিলচর তাদের প্রথম ইনিংসে ৩০০-র বেশি একটা স্কোর খাড়া করে নেবার পর ম্যাচে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছিল। তারমধ্যে শুক্রবার ম্যাচের প্রথম দিনের শেষে ধেমাজির দু উইকেটও চলে গিয়েছিল। ফলে দ্বিতীয় দিন তাদের জন্য অপেক্ষা করছিল এক কঠিন চ্যালেঞ্জ। প্রথম ইনিংসে লিড নেবার জন্য তাদের দরকার ছিল আরো ৩০৩ রানের। তবে শিলচরের দুরন্ত বোলিংয়ের সামনে ১৫৯ রানেই গুটিয়ে যায় ধেমাজি। প্রথম ইনিংসের গুরুত্বপূর্ণ লিড পায় শিলচর। ধেমাজি দল দিনের খেলা শুরু করেছিল দু উইকেটে ১৮ রান থেকে। দ্বিতীয় দিন তারা প্রথম উইকেট হারায় ৩৭ রানে। সকালের প্রথম ঘণ্টায় ভালোই খেলেছে ধেমাজি। তবে শিলচরের স্পিনাররা বিশেষ করে পরীক্ষিত বণিক ছন্দে আসতেই চিত্রটা বদলে যায়।

গুয়াহাটি ম্যাচের পর ধেমাজির বিরুদ্ধেও দারুন পারফর্ম করলেন ডানহাতি অফ স্পিনার পরীক্ষিত। টানা দ্বিতীয়বার শিকার করলেন পাঁচ উইকেট। তাকে ভালো সঙ্গ দেন আরেক স্পিনার পারভেজ মোশাররফ। তিনি নেন ২ উইকেট। ধেমাজির হয়ে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখেন অরুপ কুমবাং (৪০) ও সৌরভ মৌসুম (২২)।

প্রথম ইনিংসে লিড নেবার ফলে শিলচরের দ্বিতীয় ইনিংস হয়ে দাঁড়িয়েছিল কার্যত নিয়ম-রক্ষার। এরমধ্যে চা বিরতি পর্যন্ত ২১ ওভার খেলে নেয় শিলচর। এরপরই দুই দলের অধিনায়ক এর সম্মতি নিয়ে ম্যাচ শেষ করে দেন আম্পায়ার। শিলচরের দ্বিতীয় ইনিংসের স্কোর তখন ছিল চার উইকেটে ৭৯। প্রথম ইনিংসে শতরানকারী রোশন টপনো (৩৪) দ্বিতীয় বারও নট আউট রইলেন। ফলে ম্যাচে অপরাজিত থেকে ১৪৭ রান করলেন রোশন।

ম্যাচ শেষে দলের কোচ তথাগত দেবরায় বরাক বুলেটিন কে জানান, ফাইনালে ছাড়পত্র আদায় করতে পেরে তিনি খুশি। তবে ফাইনালে দলের কাছ থেকে আরো ভালো প্রদর্শনের আশা করছেন। বিশেষ করে টপ অর্ডারে। তথাগত বলেন, আমরা টানা দুটি কঠিন ম্যাচ জিতলাম। গোলাঘাটের পিচ ব্যাটিংয়ের জন্য খুবই কঠিন ছিল। তারপরও কিন্তু আমরা প্রথম ইনিংসে বড়সড় একটা স্কোর খাড়া করতে পেরেছি। দলের মিডল অর্ডার ও লোয়ার অর্ডার ভালো খেলছে। তবে ফাইনালে টপঅর্ডার কে রান করতে হবে।

আগামী ২৯ মার্চ ফাইনালে নলবাড়ির বিরুদ্ধে খেলতে নামবে শিলচর।

Comments are closed.