Barak Bulletin is a hyperlocal news publication which features latest updates, breaking news, interviews, feature stories and columns.
Also read in

Solar Eclipse: Date, Time and where to watch

দুদিন বাদে সূর্য গ্রহণ, সোনালী রংয়ের আগুনের আংটি দেখতে প্রহর গুনছেন উৎসাহীরা

গোটা পৃথিবীর মানুষ এখন বড়দিন আর নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে ব্যস্ত! বছর শেষ হতে হাতে গোনা দিন বাকি! কিন্তু এখনো বাকি আছে আরও চমক! সেই চমকটা হচ্ছে বছরের শেষ সূর্য গ্রহণকে কেন্দ্র করে। আগামী ২৬ ডিসেম্বর বছরের শেষ সূর্যগ্রহণের সাক্ষী হবেন ভারতসহ এশিয়ার একাধিক দেশের মানুষ। ২০১৯ সালের শেষ সূর্য গ্রহণ দেখতে উৎসাহের সঙ্গে প্রহর গুনছেন পুরো দেশের জনগণ। তাদের উৎসাহিত হওয়ার যথেষ্ট কারণও রয়েছে।

এই সূর্যগ্রহণটি আসলে বলয়াকার হবে। অর্থাৎ সূর্যগ্রহণটিকে একটি সোনালী রঙের আগুনের আংটির মতো দেখাবে। এই ধরনের সূর্যগ্রহণকে একদিকে যেমন বলয়াকার সূর্যগ্রহণ বলে, অন্যদিকে এটি ‘আগুনের বলয়’ বলেও পরিচিত।

চাঁদ নিজের কক্ষপথে ঘুরতে ঘুরতে সূর্য এবং পৃথিবীর মাঝখানে এসে পড়বে এবং ফলে পৃথিবী থেকে সূর্যকে দেখা যাবে না। চাঁদের ঢেকে দেওয়া অংশটুকু বাদ দিয়ে সূর্যের বাকি অংশ দৃশ্যমান হবে। এই সূর্য গ্রহণে চাঁদ সূর্যকে ৯৩% ঢেকে দেবে।

যাদের গ্রহণ নিয়ে বাড়তি উৎসাহ রয়েছে তাদের জন্য এবার সত্যিই সুখবর যে ভারত বর্ষ থেকেও এই সূর্যগ্রহণটি দেখা যাচ্ছে। ভারত ছাড়া সৌদি আরব, সুমাত্রা এবং বোর্নিও থেকে এই সূর্যগ্রহণ দেখা যাবে। দক্ষিণ ভারতে সূর্যগ্রহণ ভালোভাবে দেখা যাবে। ভারতের মধ্যে কেরালার কাসারগোদ জেলার চেরুভাথুর থেকে এই সূর্যগ্রহণ স্পষ্ট দেখা যাবে বলে জানা গেছে। পৃথিবীর যে কটি স্থান থেকে সবচেয়ে ভালো ভাবে এই সূর্যগ্রহণ দেখা যাবে এই শহরটি হচ্ছে তার মধ্যে অন্যতম। সেই সঙ্গে সাত জায়গা থেকে বলয় গ্রাস দেখা যাবে এদিন। কান্নোড়, কোয়েম্বাটোর, মাদুরাই, ম্যাঙ্গালোর, উঁটি, তিরুচিরাপল্লি থেকে দেখা যাবে এই বলয় গ্রাস। দক্ষিণ ভারতের একটি বড় অংশ জুড়ে দেখা যাবে এই বলয়গ্রাস। দিনের প্রারম্ভে সূর্য উঠার পর প্রথমে কর্ণাটক কেরালা ও তামিলনাড়ু থেকে আংশিকভাবে এই সূর্যগ্রহণ দেখা যাবে।তাছাড়া দিল্লি বেঙ্গালুরু মুম্বাই হায়দ্রাবাদ সহ গোটা ভারত থেকে দেখা যাবে আংশিক সূর্যগ্রহণ। কোচবিহার, দার্জিলিং, গ্যাংটক, কলকাতা থেকেও আংশিক সূর্যগ্রহণ দেখা যাবে।

সকাল সাতটা ৫৯ মিনিট ৫৩ সেকেন্ডে সূর্য গ্রহণ শুরু হবে। বলয়গ্রাস গ্রহণ শুরু হবে ভারতীয় সময় সকাল ৯টা ৪ মিনিট ৩৩ সেকেন্ডে। বলয়গ্রাস গ্রহণ শেষ হবে ভারতীয় সময় অনুযায়ী দুপুর ১২টা ৩০ মিনিট ৫৫ সেকেন্ডে। গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ১ টা ৩৫ মিনিট ৪০ সেকেন্ডে।

এদিকে শিলচরেও খণ্ডগ্রাস গ্রহণ দেখা যাবে। শুরু হবে সকাল ৮-৪০ মিনিটে, চলবে ১১-৪২ মিনিট পর্যন্ত; গ্রহণ মধ্য ১০-০৬ মিনিটে, স্থিতি ৩ ঘণ্টা ২ মিনিট ।

তবে খালি চোখে এই গ্রহণটি দেখা উচিত নয়। খালি চোখে সূর্যগ্রহণ দেখলে চোখের প্রচন্ড ক্ষতি হতে পারে।

Comments are closed.